,



রংপুরে বন্যাদুর্গতদের পাশে নেই শিরিন-এরশাদ

Spread the love

তিস্তা, ধরলা, দুধকুমার, ঘাঘট, যমুনেশ্বরী ও আখিরা নদী বিধৌত রংপুরে এবারের বন্যায় অসহায় বানভাসি মানুষের পাশে ত্রাণ হাতে এখনো দেখা মেলেনি আলোচিত মন্ত্রী-এমপিদের।

বিশেষ করে রংপুর সদর-৩ আসনের এমপি জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ও রংপুর-৬ (পীরগঞ্জ) আসনের এমপি জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী এখনও আসেননি নিজ নির্বাচনী এলাকায়।

রংপুরের ৬টি সংসদীয় আসনের এমপিদের অনেকেই রয়েছেন নির্বাচনী এলাকার বাইরে। একারণে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে বন্যাকবলিত এলাকার সাধারণ জনগণ। এমপিরা ঢাকায় অবস্থান করায় বন্যাকবলিত অনেক স্থানেই দুর্গতদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণেও দেখা দিয়েছে অলসভাব।

দলীয় ও স্থানীয় সূত্রমতে, রংপুর-১ আসন গঙ্গাচড়ার এমপি স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মসিউর রহমান রাঙ্গা গত ১০ আগস্ট রংপুরে এসে তিনদিন পর ১৪ আগস্ট ঢাকা চলে গেছেন। তিনি রংপুরে অবস্থান করার সময় গঙ্গাচড়ায় বন্যাদুর্গতদের পাশে দাঁড়িয়ে সাহায্য-সহযোগিতা করেছেন। তবে এরপর আর আসেননি।

রংপুর-২ (বদরগঞ্জ-তারাগঞ্জ) আসনের এমপি আবুল কালাম মো. আহসানুল হক চৌধুরী ডিউক তার নিজ এলাকাতেই রয়েছেন। ইতোমধ্যে দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে বানভাসি মানুষের মধ্যে শুকনো খাবারসহ বিভিন্ন ত্রাণ বিতরণ করেছেন।

রংপুর-৩ (সদর) আসনের এমপি জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এখনো রংপুরে তার দেখা মেলেনি। বর্তমানে তিনি ঢাকায় অবস্থান করছেন। নিজ এলাকার বন্যাদুর্গতদের দেখতে না আসায় দলীয় নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষের অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এরশাদের প্রতি।

রংপুর-৪ (পীরগাছা-কাউনিয়া) আসনের এমপি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য টিপু মুন্সি গত ১৩ আগস্ট রংপুরে এসেছিলেন। তিনদিনের সফর শেষে ঢাকায় ফিরে গেছেন।

রংপুর-৫ (মিঠাপুকুর) আসনের এমপি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কোষাধ্যক্ষ এইচএম আশিকুর রহমান গত ১০ আগস্ট রংপুরে এসে তিনিও তিনদিন পর ১৪ আগস্ট ঢাকা ফিরে গেছেন।

রংপুর-৬ (পীরগঞ্জ) আসনের বর্তমান এমপি স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীও দীর্ঘদিন থেকে নিজ এলাকা পীরগঞ্জে আসছেন না।

নেতা-নেত্রীর জন্য অপেক্ষা?

এদিকে গেল কয়েকদিনের টানা বৃষ্টি, উজান থেকে নেমে আসা বানের স্রোতে তিস্তা, ধরলা, দুধকুমার, ঘাঘট, যমুনেশ্বরী নদী বিধৌত রংপুরের গঙ্গাচড়া, পীরগাছা, কাউনিয়া, তারাগঞ্জ, বদরগঞ্জ, পীরগঞ্জ, মিঠাপুকুর উপজেলার বন্যায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এখনো কয়েক লাখ মানুষ বন্যার জলাবদ্ধতায় পানিবন্দি হয়ে আছেন। বন্যা দুর্গত এসব এলাকায় এখনো পর্যাপ্ত ত্রাণ পৌঁছেনি বলে অভিযোগ উঠেছে।

এদিকে বন্যার সময়ে নিজ এলাকার এমপিদের কাছে না পেয়ে দুর্গতদের মাঝে এক ধরনের হতাশা কাজ করছে।

অারো খবর