,



ড্যানিয়েল ক্রেইগ পারিশ্রমিক পারিশ্রমিক ৪৫০ কোটি টাকা

Spread the love

একটি রিয়ালিটি শোয়ের জন্য অভিনেতা অক্ষয় কুমার যখন ৫০ কোটি টাকা পারিশ্রমিক নিয়েছিলেন, তখন রীতিমতো শোরগোল পড়ে গিয়েছিল। বর্তমানে একটা ছবির জন্য বি-টাউনের একাধিক অভিনেতা বেশ মোটা অঙ্কের অর্থই পকেটে পোরেন। হলিউডে সেই টাকার পরিমাণ নিঃসন্দেহে আরো বেশি।

কিন্তু তাই বলে সাড়ে চারশো কোটি! হ্যাঁ, ঠিকই পড়েছেন। ‘জেমস বন্ড’ হয়ে নিজের শেষ ছবিতে অভিনয়ের জন্য এই বিপুল পরিমাণ অর্থই পেতে চলেছেন ড্যানিয়েল ক্রেইগ।

‘দ্য নেম ইজ বন্ড, জেমস বন্ড।’- বিখ্যাত এই সংলাপ শেষবারের মতো শোনা যাবে ড্যানিয়েল ক্রেইগের মুখ থেকে। খবর এমনটাই। বন্ডের ভূমিকায় শেষবারের মতো তাঁকে বড়পর্দায় দেখা যাবে আগামী বছরের অক্টোবরে।

এর আগে বন্ডের চারটি ছবিতে অভিনয় করেছেন হলিউডের ম্যাচো ম্যান। তবে এবার এই চরিত্রে অভিনয়ের জন্য নাকি আনুমানিক ৪৫০ কোটি টাকা নিচ্ছেন তিনি।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে ড্যানিয়েল জানিয়েছিলেন, ‘জেমস বন্ড’ সিরিজের আর কোনও ছবিতে কাজ করার আগ্রহ নেই তাঁর। তিনি এই ফ্র্যাঞ্চাইজি ছেড়ে অন্য পথে এগিয়ে যেতে ইচ্ছুক। তবে এ কথাও উল্লেখ করেন যে, আরও একবার যদি বড়পর্দায় তিনি বন্ড হয়ে ধরা দেন, তবে তা শুধুই অর্থের জন্য।

একটি সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, এই অঙ্কেই শেষমেশ রাজি হয়েছেন অভিনেতা। ইতিমধ্যেই বন্ড সিরিজের আপমাকিং ছবিটি নিয়ে পরিচালক ড্যানি বয়েলের সঙ্গে কথাবার্তা হয়েছে তাঁর। চলতি বছরের ডিসেম্বরেই ছবির শুটিং শুরু হবে বলে খবর।

‘ক্যাসিনো রয়্যালস’ দিয়ে জেমস বন্ড হিসেবে যাত্রা শুরু করেছিলেন ক্রেইগ। এরপর তাঁর ‘কোয়ান্টাম অফ সোলাস’, ‘স্পেকটর’ ও ‘স্কাইফল’ বক্স অফিসে ঝড় তুলেছিল। ‘Bond 25’ ছবিতে শেষবার দেখা যাবে ক্রেইগকে।

ইয়ান ফ্লেমিংয়ের সৃষ্ট চরিত্রটি এই নিয়ে ২৫ বার রুপোলি পর্দায় ফুটিয়ে তোলা হবে। সেই কারণেই আগামী ছবির নাম রাখা হয়েছে ‘Bond 25’। ক্রেইগ বিদায় নিলে এই চরিত্রে কে দর্শকদের মন জয় করতে পারবেন, তা নিয়েই শুরু হয়ে গিয়েছে জল্পনা।

অারো খবর