,



কোহলিদের রুখতে নয়া রণকৌশল দক্ষিণ আফ্রিকার

Spread the love

ফরম্যাট বদলের সঙ্গে বদলালো রণকৌশল। টেস্ট সিরিজে যেখানে দ্রুত গতির বাউন্সি পিচে সুইং দিয়ে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের সমস্যায় ফেলার চেষ্টা করেছিল, সেখানে একদিনের সিরিজে রণকৌশল বদলে ফেলেছে। ওয়ান্ডারার্সে ঘাসের পিচে খেলার কৌশল বুমেরাং হয়েছে। বাউন্সি ও দ্রুতগতির পিচে ভারতীয় বোলারদের পাল্টা দাপটে হার মানতে হয়ে দক্ষিণ আফ্রিকাকে।

টেস্ট সিরিজ এখন অতীত। দুই দলই এখন একদিনের সিরিজের প্রস্তুতিতে ব্যস্ত। ডারবানের কিংসমিডে ১ ফেব্রুয়ারি ছয় ম্যাচের সিরিজের প্রথম ম্যাচ খেলতে নামবে দুই দল। গতকাল ভারতীয় দলকে টায়ার সাজিয়ে ক্যাচের অনুশীলন করতে দেখা গিয়েছিল। দক্ষিণ আফ্রিকা দলকেও দেখা গিয়েছিল ঘাম ঝরাতে।

দক্ষিণ আফ্রিকা জানে যে, একদিনের খেলায় ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা মাঠের যে কোনও কোণ থেকেই রান সংগ্রহ করতে পারে। ক্রিজে একবার জমে গেলে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের ওপর রাশ টানা খুবই কঠিন। এ কথা মাথায় রেখেই প্রোটিয়া বোলাররা ইয়র্কার দেওয়ার অনুশীলন করলেন।

অনুশীলনের সময় পিচের একটি নির্দিষ্ট স্থানে রবারের টুকরো রেখে প্রোটিসা পেসাররা সেই নিশানায় বোলিং অভ্যেস করলেন। মর্নি মর্কেল, ক্রিস মরিস, লুঙ্গি এনগিডি এবং কাসিগো রাবাডারা পালা করে ইয়র্কার অস্ত্রে শান দিলেন। অনুশীলন দেখে মনে হচ্ছে, বোলিংয়ে এই রণকৌশল নিয়েই মাঠে নামতে পারে ফাফ ডুপ্লেসির দল।ইয়র্কার বলের সবচেয়ে বড় সুবিধা হল যে, ব্যাটসম্যানরা হাত খুলে শট নিতে পারে না। ছোট ফর্ম্যাটে স্লগ ওভারে কার্যকরী হয়ে ওঠে এই বল। ভারতের জসপ্রিত বুমরা ও ভূবনেশ্বর কুমাররা এই বলে প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের ঝামেলায় ফেলে থাকেন।

অারো খবর