,



কোটা পদ্ধতি বাতিল : সংসদে প্রধানমন্ত্রী

Spread the love

সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে কোটা পদ্ধতি বাতিল করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, কোটা পদ্ধতি যেহেতু কেউই চায় না তাহলে কোনো কোটাই দরকার নেই।

বুধবার জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রীর জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে জাহাঙ্গীর কবির নানকের প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, কোটা থাকলে আবারো সংস্কারের দাবি নিয়ে কেউ রাস্তায় নামবে। আবারো সংস্কার করতে হবে। অতএব কোটারই দরকার নেই। সাধারণ মানুষ যেন বার বার ভোগান্তির শিকার না হন সে জন্য কোটা পদ্ধতি একেবারেই বাতিল করা হলো।

তিনি আরও বলেন, মেয়েরাও কোটা বাতিলে রাস্তায় নেমে এসেছে। তাদের জন্য ১০ ভাগ কোটা ছিলো। তারাও যেহেতু কোটা পদ্ধতিতে চাকরি চায় না তাহলে এটা রাখারই দরকার নেই।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ঢাকাসহ জেলায় জেলায় শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নেমে এসেছে। এর মানে জেলা কোটারও প্রয়োজন নেই।

এসময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির কার্যালয়ে কারা হামলা চালিয়েছে তাদের বিচারের আওতায় আনা হবে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ঘটনাটি নিয়ে ভিসির বাড়িতে হামলা করা হলো। তারা ভিসির ওপরে পর্যন্ত আঘাত করতে গেছে। তার ছেলে-মেয়েরা ভয়ে পালিয়ে ছিলো। এটা কেন। কতোটা পরিকল্পিতভাবে এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে। যারা এর সঙ্গে জড়িত তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হওয়ার যোগ্য না। এর তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, খুব দুঃখ লাগে যখন দেখলাম, হঠাৎ কোটা চাইনা বলে অন্দোলন। ছেলে মেয়েরা লেখাপড়া বাদ দিয়ে রাস্তায় নেমে এলো। রাস্তা-ঘাট বন্ধ করে দিলো।

এটা নিয়ে একটা গুজব সৃষ্টি করা হলো। একটি ছেলের মাথা ফেটে গেছে তাকে নিয়ে গুজব ছড়ানো হলো সে মারা গেছে। মেয়েরা রাত ২টার দিকে গেটের তালা ভেঙে রাস্তায় নেমে আসলো। একটা দুর্ঘটনা ঘটলে দায়িত্ব কে নিতো?

এর আগে কোটা সংস্কার নিয়ে আজ জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কথা বলবেন বলে জানিয়েছিলেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছিলেন, সকলে ধৈর্য ধরুন, প্রধানমন্ত্রী কোটা সংস্কার নিয়ে কথা বলবেন।

অারো খবর