,



একজন তসলিমা নাসরিন কথন- শাওন রহমান

Spread the love

তসলিমা নাসরিন, শব্দটার সাথে পরিচিত নেই এমন মানুষ কমই আছে । বিশেষ করে নিন্দুক কিংবা নিন্দুক নয়,মানে মানে বুঝাতে চেয়েছি ইদানিং দেখছি পুরুষের এবং নারীদের মাঝে বেশ তর্ক চলে তসলিমা নাসরিন’কে নিয়ে ।একপক্ষ বলে তো তসলিমা নাসরিন দুধে ধোয়া তুলসি পাতা,আর এক পক্ষ বলেতো ছ্যা! ছ্যা!! এ নিয়ে বোধহয় প্রতিদিনই বেশ কিছু পরিবারে লেগে থাকে!! কখনো কখনো বউ কিংবা গার্লফ্রেন্ড আই মিন লাভার তো বলেই বসে, তা তসলিমা নাসরিন তোমার কোন পাঁকা ধানে মই দিয়েছে শুনি ।তখন গো-বেচারা স্বামী কিংবা বয়ফ্রেন্ডদের জবাবে আসে- ইয়ে মানে ! ওই তো আমা বন্ধু…/আমার অফিসের কলিক বলেছিলো সে নাকি খুব একটা ভালো না! তোমার বউ/গার্ল ফ্রেন্ডকে সাবধানে রেখ..

তখন বউ/গার্লফ্রেন্ডদের জবাবে আসে-আমাকে কো থেকে সাবধানে রাখবে,সে কি! দেশে থাকে নাকি সে কোন ভাইরাস?

আহা! বেচারা স্বামী/বয়ফ্রেন্ডদের জবাব আরে সে তো লেসবিয়ান!! তুমি জানো না?

বউ/গার্লফ্রেন্ড জবাবে বলে, তোমাকে পাগলে আছর কেটেছে তাইতো এতো ভালো একজন লেখিকার নামে বদনাম রটাচ্ছো ।

এক পর্যায় স্বামী/বয় ফ্রেন্ড রেগে গিয়ে বলেই বসে, আরে সে তো কুলাঙ্গার দেখ না,জানো না সে কিভাবে ধর্মকে অবমাননা করে।আহা! বেচারি বউ/গার্লফ্রেন্ড এ কথা জেনে বলে তাই বুঝি! ব্যাস! সুযোগ পেয়ে বসলো স্বামী/বয়ফ্রেন্ড…

-তবে আর বলছি কি! তাইতো সে দেশে থাকতে পারেনি! আর যােই হোক এর পর থেকে, তার কোন লেখা তুমি পরবে না।

-আচ্ছা ভেবে দেখছি!
আবার অন্য দিকে দেখা যায় অন্য পরিবারে রূপ…

স্বামী/বয়ফ্রেন্ড’রা আগের মতো বলা শুরু করলেই হলো । স্ত্রী/গার্লফ্রেন্ডরা ও শুরু করে দেয়…

তসলিমা  পুরুষদের সব লুচ্চমির সুত্র ধরে  ফেলছিল, তাইতো তসলিমা শব্দটা শুনলে তোমাদের মতো পুরুষের গা’ জ্বালা ধরে । আসলে তো পুরুষ’রা লুচ্চা । মায়ের জাত বলে, মাতৃত্বের জন্য নারীকে মহান করে দেখাও, আবার অন্যদিকে যারা অভাবের তারনায়,পুরুষের ন্যায় কোন কর্ম খোঁজ করে। খন তোমরা পুরুষেরা নারীর ইজ্জ্বত নষ্ট করতে দ্বিধা বোধ করো না। রাতের অন্ধকারে পতিতা পল্লীতে যাও, অার দিনের আলোতে পতিতা বলে গাল দিতে ছারো না!! পিতার পরিচয় ছাড়া সন্তানের কোন পরিচয় নেই, সে নাকি হয় ‘জারজ’। পুরুষতন্ত্রের এই ভণ্ডামিটা যখন তসলিমা ফাঁস করে দেয় তখন অস্তিত্ব সঙ্কটে পড়ে যাও তুমি, আর অস্থির হয়ে গালিগালাজ করতে থাকো তোমরা পুরুষেরা ।

তখন স্বামী/বয়ফ্রেন্ডরা রেগে আগুন হয়,মুখ ফুলিয়ে চোখ বাঁকিয়ে বলে। সামান্য একটা লেসবিয়ান খারাপ, ধর্ম অবমাননাকারীকে নিয়ে তোমার/তোমাদের নারীদের এতো মাথাব্যাথা ।থাাকো তসলিমারে নিয়া!

তখন গার্লফ্রেন্ড/বউয়ের জবাব, এইতো দেখছো… কিছু হইলেই তোমরা পুরুষেরা নারীদের বংশ’কে উদ্ধার করে ছারো,সব দোষ নারীদের পুরুষ দুধে ধোঁয়া তুলশি পাতা ।

চলতে থাকে গার্লফ্রেন্ড/বউয়ের সাথে স্বামী/বয়ফ্রেন্ডের ঝগরা । আর তা শুনে মুঁচকি মুঁচকি হাঁসে পাশের ফ্লাটে অবস্থিত তরুন ছেলেরা কিংবা বয়ফ্রেন্ডের-বয়ফ্রেন্ডরা ।

অারো খবর