,



আর নয় শিশুদের উপর যৌন নির্যাতন-শাওন রহমান

Spread the love

শিশুদের উপর যৌন নির্যাতন, কথাটি নতুন করে শোনার কোন বিষয় নয়। কেননা আমরা কেউই অতি  সাধুর দেশে বসবাস করি না।শুধু আমরাই নয় বরং  শিশুদের উপর যৌন নির্যাতন সমস্ত বিশ্ব জুড়ে একটা বিভীষিকাময় ট্যাবু সাবজেক্ট ! সব দেশে, সব কালে, প্রায় সব পরিবারে অন্তত একটা ঘটনা পাওয়া যাবে , যেখানে কোন না কোন শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার! অথচ , এটা নিয়ে কেউ কোন কথা বলে না। হঠাৎ হঠাৎ পত্রিকায় ২/১ টা খবর আসে, কয়দিন হইচই হয়, তারপর আবার সব চুপচাপ!
গত-কয়েকদিন আগে ব্রাউজারে খোঁজ করলাম,শিশু ধর্ষন বিষয় টি নিয়ে। এবং খোঁজ করার কারনে চোখে শিশু ধর্ষন বিষয় নিয়ে অনেক লেখাই আটকে গেলো। লেখা বলছি কেন! বরং খবর, হ্যা! যেখানে ৩বছরের শিশুও বাদ যায়নি।
যে শিশুটি এই নির্যাতনের শিকার, সে কিন্তু সারাজীবন ধরে একজন খন্ডিত মানব হিসেবে রয়ে যায়, যদি বেঁচে থাকে! প্রতিনিয়ত ক্ষত বিক্ষত নারকীয় যন্ত্রনায় কাটতে থাকে একটি রক্তাক্ত আত্মা, একটি জীব নয়, বরং জীবাশ্ম হয়ে !

এটি এমন একটি ঘটনা , বাবা মাকে বলা যায় না, বড় হয়ে মামলা করার , ন্যায়বিচার পাবার কোন উপায় থাকে না, শরীর -মন-সম্পর্ক সব কিছুকে একটা ম্যালিগন্যান্ট ক্যানসারের মত কুরে কুরে খেয়ে ফেলে । সামাজিক ভাবে নিগৃহিত হওয়ার ভয় থাকে। বলে কি লাভ? কেউ কি বুঝবে!” – ধরনের হতাশা! কখনো কখনো আত্মহত্যার মধ্য দিয়ে যার অবসান ঘটে!

সঠিক সংখ্যাতত্ত্ব কেউই দিতে পারে না। কোন দেশই বের করতে পারেনি , আসলে কত শিশু ছোটবেলায় যৌন নির্যাতনের শিকার হয়। সেই নির্যাতনের কিছু কিছু স্ট্যাটিসটিক্স নানান রিসার্চ বা সারভে থেকে জানা গেছে , খন্ডিত ভাবে, তবু যতটুকু জানি আমরা , সে বড় ভয়ংকর!

এবার আশা যাক দেয়ালের ওপাশে,কত জন শিশু এপর্যন্ত নির্যাতনের শিকার হয়েছে তার সঠিক তথ্য দিতে পারবো না, তাই সে তথ্য না দিয়ে বরং কাদের দ্বারা যৌন নির্যাতনের শিকার হচ্ছে তার তথ্য দিচ্ছি বা দেয়ার চেষ্টা করছি। তথ্য বিশ্বাস করা কিংবা না করা তা আপনার/আপনাদের ব্যাক্তিগত ব্যাপার। তবে চোখ-কান খোলা রাখবেন,রাখার চেষ্টা করবেন। আপনার ছোট্ট শিশু টির প্রতিই  হয়তো মানুষ রূপি হায়নাদের নজর।

শিশুদের উপর যৌন নির্যাতন -কার হাতেঃ

৫০% ক্ষেত্রে বাবা -মা বাদ দিয়ে পরিচিত, আপন, পারিবারিক আত্মীয় বা বন্ধুর হাতে
২৫% ক্ষেত্রে বাবা -মা , বায়োলজিকাল অথবা সৎ বাবা মার হাতে । বাবা/মার প্রেমিক/ প্রেমিকাও এই খানে অন্তরভুক্ত

২৫% ক্ষেত্রে উপরের লোক জন বাদ দিয়ে , অন্য কেউ (এলাকার আশপাশে অবস্থিত ব্যাক্তিবর্গ,দোকানদার,দারওয়ান সহ আরো অনেকেই হতে পারে)

৮৮% ক্ষেত্রে – নির্যাতিত শিশুরা পুরুষ অফেন্ডারের হাতে নির্যাতিত
১২% ক্ষেত্রে – নির্যাতিত শিশুরা নারী অফেন্ডারের হাতে নির্যাতিত

আসুন সাবধান হই,খোলা রাখি চোখের পর্দা।নিজে সৎ হই অসৎ মানুষ গুলোর থেকে বাঁচিয়ে রাখি আমাদের আজকে শিশু আগামী দিনের সোনালী বাংলাদেশটাকে।

অারো খবর